বৃহস্পতিবার ২৬শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
ই-পেপার   বৃহস্পতিবার ২৬শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

নওগাঁর আত্রাইয়ে শিক্ষিকার বিরুদ্ধে নিয়ম বহির্ভুতভাবে আসবাবপত্র বিক্রির অভিযোগ
প্রকাশ: ২৯ মার্চ, ২০২২, ১০:৪৩ পূর্বাহ্ণ |
অনলাইন সংস্করণ

নওগাঁর আত্রাইয়ে শিক্ষিকার বিরুদ্ধে নিয়ম বহির্ভুতভাবে আসবাবপত্র বিক্রির অভিযোগ
নওগাঁ প্রতিনিধিঃ নওগাঁর আত্রাই উপজেলার কালিকাপুর ইউনিয়নের শলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের লোহার জানালা, দরজা, রডের চেয়ার, টিনের রেলিং, পুরাতন আলমীর গ্রিলসহ মূল্যবান আসবাবপত্র গোপনে বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা ও স্কুল কমিটির সভাপতির বিরুদ্ধে। বিদ্যালয় খোলা পর গত শনিবার ভাগবাটোয়ারা নিয়ে দ্বন্দে কারণে বিষয়টি বেরিয়ে আসলে বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, অভিভাবক এবং এলাকাবাসীর মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। ২০০৫ সালে দোতলা বিশিষ্ট একটি নতুন ভবনের অনুমতি মেলে। পরে স্কুলের নতুন ভবন তৈরি শেষ হলে পুরাতন ভবনের মূল্যবান মালামাল স্কুলে দীর্ঘদিন ধরে একটি পুরাতন ঘরে পড়ে থাকে। গত নভেম্বর মাসে করোনা আক্রান্তের হার বরাবরের মতো বেড়ে যাওয়ায় স্কুল বন্ধ থাকা সময় স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা ও স্কুল কমিটির সভাপতির যোগসাজশে স্কুলের পিয়ন এর সহযোগিতায় স্কুলের লোহার জানালা, দরজা, রডের চেয়ার, টিনের রেলিং, পুরাতন আলমীরা গ্রিলসহ মূল্যবান আসবাবপত্র বিক্রি করে দেন। কত টাকার মালামাল বিক্রি করা হয়েছে তা জানা যায়নি। তবে আনুমানিক মূল্য ১ লক্ষ টাকা হতে পারে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতি জাহাঙ্গীর আলমের সঙ্গে কথা বলে তিনি জানান, সরকারি নির্দেশ বিদ্যালয় পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করা জন্য পুরাতন আসবাবপত্র বিক্রির অনুমতি দিয়েছি, তবে কোন রেজুলেশন করা হয়নি। এ দিকে শলিয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বর্তমান সভাপতি মোঃ আবুল কালাম আজাদ জানান, এসব আসবাবপত্র বিক্রির বিষয়ে আমি কিছু জানিনা। তাছাড়া প্রধান শিক্ষিকা বিদ্যালয়ের কোন বিষয়ে আমাকে অবগত করেন না। বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের অনেক অভিযোগ রয়েছে এই প্রধান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে। টেন্ডার ছাড়াই মালামাল বিক্রি করা হলো কেন? জানতে চাইলে বিদ্যালয়ের অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষকা রেহেনা বানু বলেন, এগুলো বিক্রি করে বিদ্যালয়ের উন্নয়নমূলক কার্যক্রম করেছি। এবং যা করেছি আমি শিক্ষা কর্মকর্তার সাথে কথা বলেই করেছি। এছাড়া স্থানীয় কিছু লোকজন আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে। আত্রাই উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জিল্লুর রহমান বলেন, শলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা বিদ্যালয়ের পুরাতন আসবাবপত্র বিক্রি করেছে এমনটা শুনেছি। ঘটনাটি তদন্তে একজন সহকারী শিক্ষা অফিসারকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। ঘটনা সত্যতা প্রমাণিত হলে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে




এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

পুরোন সংবাদ খুজুন
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  

সর্বাধিক পঠিত

প্রকাশক: সৈয়দ রিপন

সম্পাদক: রোমান চৌধুরী

মোবাইলঃ ০১৭১১৯৫৭২৬৩ / 09639298200

অফিস : জানুকি সিং রোড,কাউনিয়া,বরিশাল

ই-মেইলঃ barisalpress247@gmail.com

Design & Developed by
  ঘোড়াশাল-পলাশ ইউরিয়া সার প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন প্রধানমন্ত্রী   খানসামায় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী পরিবারে বাড়ি প্রদান ও ছাত্রীদের মাঝে বাইসাইকেল বিতরণ    হাওরে আর সড়ক নয়, এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণের নির্দেশনা   খাদ্য উৎপাদন-মজুত-বিপণনে অনিয়মে হবে সর্বোচ্চ ৫ বছরের জেল   ঈদের আগে-পরে ৬ দিন ফেরিতে ট্রাক পারাপার বন্ধ   সোমবার থেকে লঞ্চের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হবে   সরকার দেশের জনগণের ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করছে : ওবায়দুল কাদের   কম খরচে ভারত গমনেচ্ছুক যাত্রীদের জন্য সুখবর   দ্বৈত ভোটার হতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সনদ লাগবে না   ঈদে বাসের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু   প্লাস্টিক কারখানায় আগুন, নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ১২ ইউনিট   বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে   সবাইকে পহেলা বৈশাখের শুভেচ্ছা প্রধানমন্ত্রীর   আজ পহেলা বৈশাখ   মানুষের নিরাপত্তার দায়িত্ব আমাদের: র‍্যাব ডিজি   ধর্মের সঙ্গে সংস্কৃতির সংঘাত সৃষ্টি ঠিক নয় : প্রধানমন্ত্রী   সারাদেশে ট্রেন চলাচল বন্ধ, রেলের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ধর্মঘট   প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে সুসম্পর্ক না রেখে দেশের উন্নয়ন সম্ভব নয় : তথ্যমন্ত্রী   ঈদুল ফিতরের প্রধান জামাত সকাল সাড়ে ৮টায়   প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ৩ ধাপে
error: কপি করা থেকে বিরত থাকুন !!