শুক্রবার ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ৯ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
ই-পেপার   শুক্রবার ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

প্রতিদিন ঢাকায় আসে কয়েক’শ কেজি গাঁজা
প্রকাশ: ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১০:৫৭ অপরাহ্ণ |
অনলাইন সংস্করণ

প্রতিদিন ঢাকায় আসে কয়েক’শ কেজি গাঁজা

নিউজ ডেস্কঃ গাঁজা সেবন করতে এখন আর ‘কলকের প্রয়োজন হয় না। বিড়ি সিগারেটের মধ্যে ভরেই সেবন করা হয়। মাদক দ্রব্যের মধ্যে দিন দিনই গাঁজার চাহিদা ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। তাই মাদককারবারিরা দিন দিন এখন ঝুঁকছে গাঁজার কারবারিতে। দেশের ব্রাক্ষণবাড়িয়া সীমান্ত এলাকার কয়েক শত মানুষ এখন গাঁজা ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। সীমান্তরক্ষী চোখ ফাঁকি দিয়ে তারা আনছে হাজার চালান। অনেক সময় সীমান্তের ওপারের গাঁজাকারবারিরা বাংলাদেশে প্রবেশ করে সীমান্ত এলাকার কোনো উঁচু গাছের ঢালে বেঁধে রেখে যায়। পরে সুবিধা মত বাংলাদেশের গাঁজা কারবারিরা সংগ্রহ করে বিভিন্ন পদ্ধতিতে ঢাকায় চালান করে। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে এমন তথ্যই জানিয়েছে গাঁজা কারবারি মোঃ: মামুন খান।

গত শনিবার মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের গুলশান বিভাগের একটি টিম মোহাম্মদপুর বছিলা রোড এলাকা থেকে তাদের আটক করে। এসময় তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করে ৫০ কেজি গাঁজা। এসময় জব্দ করা হয় গাঁজা বহনে ব্যবহৃত একটি প্রাইভেটকার। গোয়েন্দা পুলিশ মামুনকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের গুলশান বিভাগের উপ-কমিশনার মশিউর রহমান।

তিনি বলেন, কতিপয় মাদককারবারি ব্রাহ্মণবাড়িয়া হতে মাইক্রোবাসযোগে গাঁজা নিয়ে ঢাকা হয়ে দিনাজপুরের উদ্দেশে যাবে মর্মে তথ্য পাওয়া যায়। এমন তথ্যের ভিত্তিতে মোহাম্মদপুর থানার বছিলা রোড, তিন রাস্তার মোড় এলাকায় অবস্থান নেয় গোয়েন্দা পুলিশের একটি টিম। বিকাল সোয়া চারটার দিকে বছিলা তিন রাস্তার মোড় এলাকার জালাল টেলিকমের সামনে গাঁজা বহনকারী প্রাইভেটকারটি পৌঁছালে ব্যারিকেডের মাধ্যমে প্রাইভেটকারটি থামানোর চেষ্টা করে গোয়েন্দা পুলিশ। পুলিশের উপস্থিতি বুঝতে পেরে পালানোর চেষ্টাকালে মামুনকে প্রাইভেটকারসহ গ্রেফতার করা হয়। পরবর্তীতে প্রাইভেটকারটি তল্লাশি করে ৫০ কেজি গাঁজা উদ্ধার জব্দ করা হয়। এ ঘটনায় মোহাম্মদপুর থানায় মামলা হয়েছে।

গোয়েন্দা পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত মামুন খান জানায়, বর্তমানে গাঁজার ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। আর এ কারণে বর্তমানে গাঁজার দামও বৃদ্ধি পেয়েছে। আগে সীমান্ত এলাকা থেকে প্রতি কেজি গাঁজা সংগ্রহ করা হতো ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকার মধ্যে। বর্তমানে প্রতিকেজি গাঁজা সীমান্ত এলাকায় ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকায় কিনতে হয়। ঢাকায় এনে তা বিক্রি করে ৪৫ থেকে ৫০ হাজার টাকায়।

মামুন খান আরও জানায়, বর্তমানে অধিকাংশ হাজার চালান আসে প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস ও অ্যাম্বলেন্সে করে। গাঁজার বড় বাজার রাজধানী। এরপর দেশের উত্তরবঙ্গে। একই দিন তার মত আরও কয়েকজন গাঁজার চালান নিয়ে ঢাকায় আসে। তবে গত ১০ বছর ধরে গাঁজার ব্যবসার সাথে জড়িত থাকলেও কখনো পুলিশের হাতে ধরা পড়তে হয়নি। মামুন খান আরও জানায়, সীমান্ত এলাকা গাঁজা সংগ্রহ থেকে শুরু করে বাজারজাত করা পর্যন্ত দেশ ব্যাপী বেশ কয়েকটি সিন্ডিকেট রয়েছে। তারাই মূলত নিয়ন্ত্রণ করে গাঁজা বেচাকেনা।

যে ভাবে আসে গাঁজা:

প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, ভারত থেকে আসা গাঁজার চালানের বড় অংশ আসে কুমিল্লা ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সীমান্ত এলাকা দিয়ে। মাদককারবারিরা এসব চালান ঢাকা-কুমিল্লা মহাসড়ক ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক দিয়ে গন্তব্যে পাঠায়। কখনো ট্রেনে, কখনও পণ্য ভর্তি ট্রাকে। গাঁজা ব্যবসায়িদের আস্তানা ঢাকার উপকণ্ঠ নারায়ণগঞ্জ, রূপগঞ্জসহ কয়েকটি এলাকায়। সেখানে অনেকে তুলার ব্যবসার আড়ালে মজুদ করে মণে মণে গাঁজা।




এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

পুরোন সংবাদ খুজুন
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  

সর্বাধিক পঠিত

প্রকাশক: সৈয়দ রিপন

সম্পাদক: রোমান চৌধুরী

মোবাইলঃ ০১৭১১৯৫৭২৬৩ / 09639298200

অফিস : জানুকি সিং রোড,কাউনিয়া,বরিশাল

ই-মেইলঃ barisalpress247@gmail.com

Design & Developed by
  শিক্ষার্থীর ক্লাসে উপস্থিতি নিয়ে চাপ দেয়া যাবে না: শিক্ষামন্ত্রী   অল্পসময়ের মধ্যেই ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে আসবে : এলজিআরডি মন্ত্রী   সংবাদপত্র বাতিলের তালিকায় ২১০টি   বিট এলাকায় জনসচেতনতা মূলক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত   জামালপুরগামী ট্রেনে ডাকাতি, নিহত ২   বানারীপাড়ায় প্রয়াত অধ্যক্ষ নিজাম উদ্দিনের শোকার্ত পরিবারের পাশে গোলাম ফারুক   মালির রাজধানী বামাকোতে ১৪০ জন পুলিশ সদস্যের জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা পদক লাভ   বানারীপাড়ায় শেরে বাংলা ডিগ্রী কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আঃ হাদি   বাংলাদেশের সিনেমায় অভিনয় করেও বাদ পড়লেন সানি লিওন   কুয়াকাটা ভাঙ্গন কবলিত সৈকত পরিদর্শন করেন পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী   করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২৪ জন, নতুন আক্রান্ত ১,১৪৪ জন   ব্যাংকের ভল্টে গরমিল, তিন কর্মকর্তা প্রত্যাহার   ‘এক কোটির বেশি লোককে একসঙ্গে টিকা দেওয়া হবে’: স্বাস্থমন্ত্রী   ‘জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে তো আমরা স্বৈরাচার এরশাদের দোসর হিসেবেই জানতাম’ : রিজভী   রোহিঙ্গাবিরোধী তথ্য প্রকাশে ফেসবুককে নির্দেশ দিলেন যুক্তরাষ্ট্রের আদালত   বৈশ্বিক জলবায়ু আন্দোলন, গ্লোবাল ক্লাইমেট স্টাইক বিষয়ে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত   নেতৃত্বকে পূর্ণতা দেয় বিনয়, অধস্তনকে আপন করে নেওয়ার মধ্যেই ঊর্ধতনের ঔদার্য প্রকাশ পায়   কুয়াকাটার অচিরেই ফিরবে সৌন্দর্য – নির্মিত হতে যাচ্ছে স্থায়ী বাস টার্মিনাল   বিমানবন্দরে পরীক্ষামূলকভাবে করোনার পরীক্ষা শুরু   ৬৪ জেলায় বিদ্যমান টেনিস কোর্ট সংস্কার ও অবকাঠামো আধুনিকায়নের প্রকল্প গ্রহণ
error: কপি করা থেকে বিরত থাকুন !!