রবিবার ২০শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ৬ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
ই-পেপার   রবিবার ২০শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বাড়ছে করোনার প্রকোপ, সীমান্তে কঠোর লকডাউনের দাবি বিশেষজ্ঞদের
প্রকাশ: ১০ জুন, ২০২১, ১২:২৩ অপরাহ্ণ |
অনলাইন সংস্করণ

বাড়ছে করোনার প্রকোপ, সীমান্তে কঠোর লকডাউনের দাবি বিশেষজ্ঞদের

নিউজ ডেস্কঃ দেশের সীমান্তবর্তী এলাকায় করোনাভাইরাসের প্রকোপ আগে থেকেই বাড়ছিল। এবার তার সঙ্গে নতুন করে যুক্ত হচ্ছে একের পর এক জেলা। ঢাকা বিভাগে শনাক্তের হার কিছুটা কমলেও ইতিমধ্যে বেড়েছে, রাজশাহী, রংপুর, চট্টগ্রাম, খুলনা, বরিশাল ও সিলেট বিভাগে। চট্টগ্রাম বিভাগের শুধু নোয়াখালীতে চট্টগ্রাম জেলা থেকেও শনাক্তের হার বেশি। তাছাড়া বরিশালের পিরোজপুরে শনাক্তের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা লক্ষ্য করা গেছে।

সীমান্তবর্তী এলাকাগুলো কঠোর লকডাউনে না রাখতে পারলে সারাদেশে ব্যাপক হারে করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে আশংকা করে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা বলেন, সীমান্তবর্তী ১৭টি জেলায় করোনার ভারতীয় ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। এরমধ্যে ৮টি জেলায় সংক্রমণ বাড়ছে অধিক মাত্রায়, যা উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী থাকলেও দেশের অন্যান্য জেলার মতো সীমান্তবর্তী জেলাগুলোতেও ঢিলেঢালাভাবে লকডাউন চলছে। এভাবে চললে সামনে ভয়াবহ অবস্থার সৃষ্টি হবে। সীমান্তবর্তী জেলাগুলোতে কঠোর লকডাউন দিতে হবে। ভারতীয় সীমান্তবর্তী জেলার মানুষদের ঘর থেকে বের হতে দেওয়া যাবে না-এমন লকডাউন প্রয়োজন। একই সঙ্গে অবৈধপথে ভারত থেকে মানুষ আসা বন্ধ করতে হবে। এগুলো করতে না পারলে সংক্রমণ সারাদেশে বেড়ে যাবে, তখন স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষে পরিস্থিতি সামাল দেওয়া সম্ভব হবে না।

করোনা মোকাবেলায় গঠিত জাতীয় টেকনিক্যাল পরামর্শক কমিটির প্রধান অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ সহিদুল্লাহ বলেন, ভারতীয় সীমান্তবর্তী ১৬ থেকে ১৭টি জেলা খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। সেখান থেকে একের পর এক জেলায় সংক্রমণ বাড়ছে। তবে ঢাকায় সংক্রমণ হার কমছে। শনাক্তের হার ২০ থেকে ৭ শতাংশে নেমে এসেছে। এটা লকডাউনের সফলতা। তিনি বলেন, সীমান্তবর্তী জেলার মানুষকে ঘরে রাখতেই হবে। এক্ষেত্রে যা যা করার তাই করতে হবে। কমপক্ষে দুই সপ্তাহ সীমান্তবর্তী এলাকা সিল করে রাখতে পারলে সংক্রমণ ঠেকানো সম্ভব হবে। তিনি বলেন, সীমান্তবর্তী এলাকায় করোনা পরীক্ষা বাড়ানো হয়েছে। এটা ভালো উদ্যোগ।

সিলেট জেলা এবং খুলনা বিভাগের যশোর ও সাতক্ষীরা জেলায় শনাক্তের হার বেশি। খুলনার বাগেরহাট, নড়াইল এবং কুষ্টিয়ায় শনাক্তের হার বাড়তে দেখা গেছে। এছাড়া কঠোর বিধিনিষেধ ও লকডাউনের আওতায় থাকা রাজশাহীতে সংক্রমণ বাড়ছেই। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের দুটি পিসিআর ল্যাবে মঙ্গলবার রাজশাহীর ৪৯০ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১৯৯ পজেটিভ পাওয়া গেছে। বিশেষজ্ঞরা আগেই জানিয়েছিলেন, দেশে বর্তমানে সংক্রমণের নিম্নমুখিতা থাকলেও ঈদের পর তা বেড়ে যাবে। আর এখন তার সঙ্গে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট যুক্ত হয়ে দেশের সংক্রমণ পরিস্থিতিকে আবারও শঙ্কার মুখে ফেলেছে। আর এবারের সংক্রমণ বৃদ্ধি শুরু হয়েছে সীমান্তবর্তী জেলাগুলো থেকে। তবে ধীরে ধীরে সেই সংক্রমণ পুরো দেশেই ছড়িয়ে পড়ছে বলে জানিয়েছে খোদ স্বাস্থ্য অধিদফতর। এছাড়া সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ এবং গবেষণা প্রতিষ্ঠান জানিয়েছে দেশে প্রাপ্ত নমুনার ৮০ শতাংশ ভারতের ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট। তাদের ধারণা দেশে ভারতীয় এই ভ্যারিয়েন্টের সামাজিক সংক্রমণ ঘটেছে।

দেশের সীমান্তবর্তী জেলাগুলোতে করোনার সংক্রমণ রোধে বিধিনিষেধ আরোপের যে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে এবং ব্যক্তিপর্যায়ে যে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে তা বাস্তবায়নে শিথিলতার পরিচয় দিলে পরিস্থিতি খারাপ হতে পারে বলে আশঙ্কা করছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। গতকাল করোনা বিষয়ক ভার্চুয়াল বুলেটিনে এ আশঙ্কার কথা বলেন অধিদফতরের মুখপাত্র অধ্যাপক ডা. নাজমুল ইসলাম। চার জুন থেকে করোনার সংক্রমণ বাড়ছে এবং সেটা ৮ জুন পর্যন্ত বেড়ে ১২ শতাংশের বেশি হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, সীমান্তবর্তী কিছু জেলায় স্বাস্থ্য প্রশাসনের পরামর্শে স্থানীয় প্রশাসন কঠোর বিধিনিষেধ বাস্তবায়ন করছে। এটা সবার মঙ্গলের জন্য করা হচ্ছে। আর এই বিধিনিষেধে জনগণের সহায়তার জন্যই করা মন্তব্য করে তিনি বলেন, কোনও জায়গায় শিথিলতার পরিচয় দিলে সেটি আমাদের জন্য ভালো ফলাফল বয়ে আনবে না। নাজমুল ইসলাম বলেন, ‘জয়পুরহাটে শতকরা হিসাবে শনাক্তের হার ২৫ শতাংশের বেশি, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ২৯ শতাংশের বেশি, রাজশাহীতে ২৩ শতাংশের বেশি। এই জায়গাগুলোতে করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি রয়েছে। এসব জায়গায় লকডাউন বা বিধিনিষেধ আরোপ করায় স্থিতাবস্থা আছে। এটি যদি অব্যাহত রাখা যায়, তাহলে ঊর্ধ্বগতি থেকে আমরা রেহাই পেতে পারি।’

স্বাস্থ্য অধিদফতরের কর্মকর্তারা জানান, করোনা সংক্রমণের হার বেড়ে যাওয়ায় চলতি জুন মাস গত মাসের মতো স্বস্তিকর যাবে না বলে মনে করছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। আর এর অন্যতম কারণ সীমান্তবর্তী জেলাগুলোতে সংক্রমণের হার। খুলনা, রাজশাহী, যশোর, চাঁপাইনবাবগঞ্জে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে জানিয়ে তারা বলেন, কেন্দ্র থেকে একটি মেডিক্যাল টিম চাঁপাইনবাবগঞ্জে অবস্থান করে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জে ইতিমধ্যে বলা হয়েছে, জরুরি রোগী ছাড়া যেন কাউকে ভর্তি নেওয়া না হয়। প্রয়োজনে পুরো হাসপাতাল করোনা সেবায় ব্যবহার করা হবে। প্রান্তিক অন্য এলাকাগুলোতেও তা-ই বলা হয়েছে। গত এক সপ্তাহে দেশে সংক্রমণের ‘পজিটিভ রেট বেড়ে গেছে, মৃত্যু বাড়ছে ধীরে ধীরে’ মন্তব্য করে স্বাস্থ্য অধিদফতরের একাধিক কর্মকর্তা বলেন, ‘গত এক সপ্তাহে আমাদের পজিটিভ রেট বেড়ে গেছে। যদিও দেশে সংক্রমণের হার প্রায় ৬ থেকে ৭ শতাংশে নেমে এসেছিল। কিন্তু সেটা ক্রমাগত বাড়তে শুরু করেছে।’

শনাক্তের হার বাড়তে থাকা জেলাগুলোর সিভিল সার্জনদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ঈদের সময় স্বাস্থ্যবিধি না মেনে মানুষের অনিয়ন্ত্রিত চলাচলে বেড়েছে সংক্রমণ। পিরোজপুরের সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, প্রতিদিনই দুই একজন করে রোগী বাড়ছে। টেস্ট কম হচ্ছে কিন্তু সন্দেহজনকভাবে যারা আসছেন তাদের মধ্যে করোনা পজেটিভ হওয়ার প্রবণতা বেশি। নড়াইলে গত সপ্তাহে সংক্রমণের হার ছিল ১৫ দশমিক ৭৩ শতাংশ, কিন্তু গত মাসে সেটা ৯ শতাংশে ছিল।




সর্বশেষ সংবাদ

পুরোন সংবাদ খুজুন
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০  

সর্বাধিক পঠিত

প্রকাশক: সৈয়দ এমরান আলী রিপন

সম্পাদক: রোমান চৌধুরী

মোবাইলঃ ০১৭১১৯৫৭২৬৩ / 09639298200

অফিস : সৈয়দ মহল, জানুকি সিং রোড,কাউনিয়া,বরিশাল

ই-মেইলঃ barisalpress247@gmail.com

Design & Developed by
  বরিশালের জাগুয়ায় ৩ নং ওয়ার্ডে সুষ্ঠু ভোট নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ   প্রবাসী কর্মীদের ৪ দফা দাবি   টিকটক-পাবজিসহ অনলাইন খেলা ও অ্যাপস বন্ধে আইনি নোটিশ   চাকরির পেছনে না ছুটে নিজেকে উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে তুলতে হবে:শিক্ষামন্ত্রী   গাছে গাছে শোভা পাচ্ছে আল্লাহর জিকির!   শিক্ষার্থীদেরকে টিকা প্রদান শুরু করেছে রাজশাহীর মেডিকেল কলেজগুলো   ভারতের চেন্নাইয়ে চার সিংহের শরীরে করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত   রাজশাহী বিভাগে করোনায় ৮ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৩৪৭   জাতীয় যুব সংসদ বাজেট অধিবেশন ২০২১ অনুষ্ঠিত   দেশ এগিয়ে যাচ্ছে অপ্রতিরোধ্য গতিতে : ওবায়দুল কাদের   দাম বাড়িয়ে বোতলের লেবেল পাল্টে বিক্রি হচ্ছে সয়াবিন   ‘শিক্ষা ব্যবস্থা ধ্বংসের আগেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে হবে’:ন্যাপ   বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম হীরার সন্ধান মিললো আফ্রিকায়   ইরানের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে এগিয়ে আছেন বিচারক রাইসি   মিয়ানমারের কাছে অস্ত্র বিক্রি স্থগিত করতে আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘ   বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া সোহেল, আম চাষ করে বছরে আয় কোটি টাকা   হাইকোর্টের সিদ্ধান্তে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন যুক্তরাজ্য প্রবাসীরা   মুক্তি পেলেন বিএনপি নেত্রী নিপুণ রায়   ফাইজারের মধ্যস্থতায় ফিলিস্তিনকে মেয়াদোত্তীর্ণ টিকা গছিয়ে দিচ্ছে বর্বর ইসরায়েল   স্বেচ্ছায় আত্মগোপনে ছিলেন আবু ত্ব-হা মোহাম্মদ আদনানসহ তার ৩ সঙ্গী: ডিবি
error: কপি করা থেকে বিরত থাকুন !!