মঙ্গলবার ২রা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৭ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
ই-পেপার   মঙ্গলবার ২রা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

আগামী ১১ই মার্চ দিবাগত রাতে পবিত্র লাইলাতুল মিরাজ পালন করা হবে
প্রকাশ: ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৯:৫৪ অপরাহ্ণ |
অনলাইন সংস্করণ

আগামী ১১ই মার্চ দিবাগত রাতে পবিত্র লাইলাতুল মিরাজ পালন করা হবে

নিউজ ডেস্কঃ
আজ (শুক্রবার) সন্ধ্যায় রাজধানীর বায়তুল মোকাররমে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের কার্যালয়ে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির বৈঠক শেষে এতথ্য জানিয়েছেন ধর্ম মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আলতাফ হোসেন চৌধুরী।

আজ রজব মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। তাই আগামী ১৪ই ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হবে রজব মাস। আর আগামী ১১ই মার্চ (২৬ রজব দিবাগত রাত) যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হবে পবিত্র শবে মেরাজ। পবিত্র এই দিনে জিকির-আজকার, নফল নামাজ, দোয়ার মধ্য দিয়ে শবেমেরাজের রাত অতিবাহিত করেন মুসলমানরা।

লাইলাতুল মিরাজ বা মিরাজের রাতকে আমাদের দেশে সাধারণত শবে মিরাজ হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়। ইসলাম ধর্মমতে, হযরত মুহাম্মদ (সা.) নবুওয়াত প্রাপ্তির একাদশ বছরের (৬২০ খ্রিস্টাব্দ) রজব মাসের ২৬ তারিখ দিবাগত রাতে হযরত জিবরাইল (আ.) এর সাথে বোরাকে চড়ে পবিত্র কাবা থেকে পবিত্র বায়তুল মুকাদ্দাস হয়ে সপ্তম আকাশের ওপর আরশে আজিমে আল্লাহর দিদার লাভ করেন।

মুসলমানরা এবাদত-বন্দেগীর মধ্য দিয়ে এ রাতটি উদযাপন করেন। ইসলামে মেরাজের বিশেষ গুরুত্ব আছে, কেননা এ মেরাজের মাধ্যমেই ইসলাম ধর্মের পঞ্চস্তম্ভের দ্বিতীয় স্তম্ভ অর্থাৎ নামাজ মুসলমানদের জন্য অত্যাবশ্যক (ফরজ) করা হয় এবং এ রাতেই দৈনিক পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ মুসলমানদের জন্য নিয়ে আসেন নবী মুহাম্মদ (সা.)।

হাদিস ও সাহাবিদের বর্ণনা অনুযায়ী, মেরাজের রাতে ফেরেশতা জিবরাইল (আ.) রাসুল (সা.) নিয়ে কাবা শরিফের হাতিমে যান। জমজমের পানিতে অজুর পর বোরাক নামক বাহনে জেরুজালেমের বায়তুল মুকাদ্দাসে গিয়ে নামাজ আদায় করেন। এরপর প্রথম আকাশে পৌঁছান মহানবী (সা.)। সেখানে হজরত আদম (আ.)-এর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। এভাবে সাত আকাশ পর্যন্ত প্রতিটি স্তরে সাক্ষাৎ করেন হজরত ঈসা (আ.), হজরত ইয়াহইয়া (আ.), হজরত ইদ্রিস (আ.), হজরত হারুন (আ.), হজরত মুসা (আ.) এবং হজরত ইব্রাহিম (আ.)-এর সঙ্গে।

সপ্তম আকাশ থেকে সিদরাতুল মুনতাহায় গমন করেন মহানবী (সা.)। সেখান থেকে আরশে আজিম যান। এক ধনুক দূরত্ব থেকে আল্লাহর সঙ্গে কথোপকথন হয়। পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ ফরজ করা হয় মহানবী (সা.)-এর উম্মতদের জন্য।

মেরাজ শেষে পৃথিবীতে ফিরে রাসুল (সা.) পুরো ঘটনা হজরত আবু বকর (রা.)-এর কাছে বর্ণনা করেন। তিনি নিঃসংশয়ে তা বিশ্বাস করেন। রাসুল (সা.) তাকে সিদ্দিকী বা বিশ্বাসী খেতাব দেন। মক্কার কাফেররা রাসুলের মেরাজের ঘটনাকে অবিশ্বাস করে।




এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

পুরোন সংবাদ খুজুন
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  

সর্বাধিক পঠিত

প্রকাশক: সৈয়দ এমরান আলী রিপন

সম্পাদক: রোমান চৌধুরী

মোবাইলঃ ০১৭১১৯৫৭২৬৩ / 09639298200

অফিস : সৈয়দ মহল, জানুকি সিং রোড,কাউনিয়া,বরিশাল

ই-মেইলঃ barisalpress247@gmail.com

Design & Developed by
  পটুয়াখালীতে বীমা দিবস পালিত   রাজশাহী ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজে কর্মবিরতি   বরিশালের উজিরপুরে আসবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি   হিলিতে যৌন উত্তেজক সিরাপ বিক্রির দায়ে লক্ষাধিক টাকা জরিমানা   বরিশালের কোষ্টগার্ড ১৫শ মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল জব্দ করে আটক ৪   বেতাগীতে মেসার্স হুমায়ুন স্টোরের নতুন ডেকোরেশন ও সম্প্রসারণ উপলক্ষে দোয়া মোনাজাত   রাজশাহীতে ট্রলি চাপায় গৃহবধূ নিহত, আটক ২   রাজশাহীতে জাতীয় বীমা দিবস পালন   রাজশাহী বিভাগে করোনার টিকা নিয়েছে ১১ হাজার মানুষ   চাটমোহরে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ঘর দেওয়ার আশ্বাসে লক্ষ টাকা নেওয়ার অভিযোগ   গৌরনদীতে ২য় বীমা দিবস পালিত   রাজশাহীতে বিএনপির স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন উদ্বোধন   বুবলীকে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে হত্যার চেষ্টা!   রাজশাহী বিভাগীয় সমাবেশের অনুমতি পেয়েছে বিএনপি   নিখোঁজের ৪ দিন পর ডোবা থেকে রিক্সা চালকের লাশ উদ্ধার   দুমকিতে উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা   কলাপাড়ায় আমাদের কন্ঠ পত্রিকার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন।   রাবির ভর্তি পরীক্ষা শুরু ১৪ জুন   রাজশাহী থেকে হঠাৎ বাস চলাচল বন্ধ, ভোগান্তি যাত্রীদের   রাজশাহী বিভাগে ১৮ ও জেলায় ৫ জনের করোনা শনাক্ত
error: কপি করা থেকে বিরত থাকুন !!