রবিবার ২২শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ ৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
ই-পেপার   রবিবার ২২শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

শুধু নিজেদের আরাম আয়েশ এটা তো মানবতা না, দুস্থদের পাশে দাঁড়ান | প্রধানমন্ত্রী
প্রকাশ: ৩১ অক্টোবর, ২০২০, ১১:১৭ অপরাহ্ণ |
অনলাইন সংস্করণ

শুধু নিজেদের আরাম আয়েশ এটা তো মানবতা না, দুস্থদের পাশে দাঁড়ান | প্রধানমন্ত্রী
মোহাম্মদ মাহমুদুল হাসান |
ঢাকা |
সকল শ্রেনী-পেশার বিত্তশালীদের নিজ নিজ এলাকার অসহায়-দুস্থ মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, আমাদের বিত্তশালীরা তারা যদি নিজ নিজ এলাকায় প্রত্যেকেই অন্তত কিছু দুস্থ পরিবারের দিকে ফিরে তাকায়। শুধু নিজেরা ভাল থাকবো, নিজে সুন্দর থাকবো, নিজে আরাম আয়েশে থাকবো- আর আমার দেশের মানুষ এলাকার মানুষ কষ্টে থাকবে, এটা তো মানবতা না। শনিবার (৩১ অক্টোবর) সকালে “মুজিববর্ষে গৃহহীন মানুষকে সরকারের সচিবগণের গৃহ উপহার” কার্যক্রমের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন। প্রসঙ্গত, সরকারের ৮০জন সিনিয়র সচিব/সচিব নিজ নিজ এলাকায় নিজস্ব অর্থায়নে ১৬০টি গৃহের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করেছেন। আজ ১৬০টি পরিবারের গৃহের চাবি হস্তান্তর করা হয়। প্রধানমন্ত্রী দেশের মানুষের আর্থ সামাজিক উন্নয়নের লক্ষ্যে সরকারের গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপ বাস্তবায়ন ও পরিকল্পনা গ্রহণের কথা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, যদিও করোনাভাইরাসের কারণে হয়ত অনেক কাজ থমকে গেছে। তারপরও আপনারা দেখেছেন, আমরা কিন্তু বসে নেই। এই করোনাভাইরাসের মধ্যেও আমরা একেবারে গ্রাম পর্যায়ের মানুষের কাছে আর্থিক সহায়তা পৌঁছায় আমরা সেই চেষ্টাও করে যাচ্ছি। আমি মনে করি যারা আমাদের বিত্তশালী তারা যদি একটু যার নিজ নিজ এলাকায় প্রত্যেকেই যদি অন্তত কিছু দুস্থ পরিবারের দিকে ফিরে তাকায়। কাউকে একটা ঘর করে দিলে, তাদের কিছু কাজের ব্যবস্থা করে দিল।তাদের একটু সহযোগিতা করল। শুধু নিজে ভাল থাকবো। নিজে সুন্দও থাকব। নিজে আরাম আয়েশে থাকবো- আর আমার দেশের মানুষ, আমার এলাকার মানুষ তারা কষ্টে থাকবে, এটা তো মানবতা না, এটা তো হয় না। পাশাপাশি যারা যে স্কুলে পড়াশোনা করেছেন, আমি সকলকেই বলবো, চাকরিজীবী বলেন, ব্যবসায়ী বলেন বা যে যেখানেই আছেন, প্রত্যেকের কাছে অনুরোধ থাকবে, আপনারা যার যার নিজ নিজ স্কুলে পড়াশোনা করেছেন, সেই স্কুলগুলোর উন্নয়নের জন্য একটু কাজ করেন বা আপনি যেগ্রামে জন্মগ্রহণ করেছেন, সেই গ্রামে যে কয়টা মানুষকে পারেন, সহযোগিতা করেন। সবাই মিলে সম্মিলিত কাজ করলে পরে এদেশের দারিদ্র্য থাকবে না। কারণ বাংলাদেশের মানুষ অনেক সাহসী। জাতির পিতা তো এই মানুষগুলোকে নিয়েই যুদ্ধ করে বিজয় অর্জন করেছেন, সেই পাকিস্তানি সেনাবাহিনী সারাবিশে^ সবচেয়ে শক্তিধর সেনাবাহিনী ছিল। তারা খুব গর্ব করত। তাদের আবার কে হারাবে? কিন্তু বাঙালিরা তো হারিয়ে দিয়েছে তাদেরকে। যুদ্ধে আমরা বিজয় অর্জন করেছি। কাজেই আমরা বিজয়ী জাতি। বিজয়ী জাতি হিসাবেই আমরা বিশ^ দরবারে উঁচু করে চলবো। ‘‘হ্যাঁ, ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে হত্যার পর আমাদের সম্মানহানি হয়েছিল। বাঙালি জাতি সে বিজয়ের বেশে থাকতে পারেনি। বরং একটা খুনী হিসাবে মাথা নিচু করে চলতে হয়েছে। কিন্তু ১৯৮১ সালে আমি দেশে আসার পর আমাদের প্রচেষ্টায় ১৯৯৬ সালে সরকার গঠনের পর থেকে আমরা বাংলাদেশের মানুষ আমাদেরকে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করেছে। তারপর থেকে মানুষের সেবা করে আমরা অন্তত পক্ষে বলতে পারি, বিশে^ এখন আমরা মাথা উঁচু করে চলতে পারি। সেই সম্মানটা আমরা অর্জন করেছি। ‘দারিদ্র্যের হার আমরা কমিয়েছি। কিন্তু আমরা আরও কমাতে চাই। লক্ষ্য ছিল আমাদের ২০২১ সালের মধ্যে আমরা একেবারে বাংলাদেশকে দারিদ্র্যমুক্ত ঘোষণা করবো। করোনা ভাইরাসের কারণে হয়ত সেটা আমরা পারিনি। কিন্তু আমাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে, অব্যাহত থাকবে। জাতির পিতা বলেছিলেন যে দেশের মাটি এতো উর্বর, একটা বীজ ফেললে যেখানে গাছ হয়। সেই গাছের ফল হয়, সেই দেশের মানুষ কেন না খেয়ে কষ্ট পাবে, কথাটা অত্যন্ত বাস্তব। একটু চেষ্টা করলেই কিন্তু সবাই নিজেরা ভাল থাকতে পারেন। আর যারা একটু বিত্তশালী তারা একটু পাশে দাঁড়ালে আমি মনে করি আরও সুন্দর জীবন পেতে পারেন। আমার একটাই লক্ষ্য, কারণ আপনারা এটা বুঝতে পারেন—বাবা মা ভাই সব হারিয়ে সেই শোক ব্যাথা বুকে নিয়ে কাজ করি একটা লক্ষ্য সামনে নিয়ে। কারণ এদেশের মানুষের জন্যই তো আমার মা জীবন দিয়ে গেছেন, বাবা জীবন দিয়েছেন, ভাইয়েরা জীবন দিয়েছেন। আমার বাবা সারাটা জীবন কষ্ট স্বীকার করেছেন। কাজেই আমি যদি একটু কিছু করে যেতে পারি মানুষের জন্য এটাই আমার জীবনের সার্থকতা। কি পেলাম, না পেলাম সেই চিন্তা আমি কখনো করি না। আমার চিন্তা একটাই কতটুকু আমি মানুষের জন্য করতে পারলাম। দেশের মানুষের জন্য করতে পারলাম, আপনাদের জন্য করতে পারলাম। মুজিববর্ষে নিজস্ব অর্থায়নে গৃহহীনদের ঘর উপহার জন্য সংশ্লিষ্ট সচিবদের প্রতি ধন্যবাদ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তারা এই চিন্তাভাবনা থেকে দেশেপ্রেমে উদ্বুর্ধ্ব হয়ে আজকে যে মানুষগুলোর পাশে দাঁড়িয়েছে, তাদেও একটা মাথা গোঁজার ঠাঁই করে দিয়েছে, একটা ঘর করে দিয়েছে। এটা একটা মহৎ কাজ আপনারা করেছেন। ভবিষ্যতেও এভাবে মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ বিশে^ ক্ষুধামুক্ত দারিদ্র্যমুক্ত সমৃদ্ধশালী সোনার বাংলাদেশ হিসাবে গড়ে উঠবে, জাতির পিতার স্বপ্ন আমরা পূরণ করবো। গণভবন প্রান্তে অন্ষ্ঠুানটি সঞ্চালনা করেন প্রধানমন্ত্রীর মূখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন মন্ত্রীপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।এছাড়া গৃহ পাওয়া তিন জন উপকারভোগী বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসহাক খান, হাকিম মোল্লা এবং নিগুম চাকমা মতবিনিময় করেন।




সর্বশেষ সংবাদ

পুরোন সংবাদ খুজুন
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০  

সর্বাধিক পঠিত

প্রকাশক: সৈয়দ এমরান আলী রিপন

সম্পাদক: রোমান চৌধুরী

মোবাইলঃ ০১৭১১৯৫৭২৬৩ / 09639298200

অফিস : সৈয়দ মহল, জানুকি সিং রোড,কাউনিয়া,বরিশাল

ই-মেইলঃ barisalpress247@gmail.com

Design & Developed by
  হিলিতে সাপ্তাহিক আলোকিত সীমান্ত’র আজ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত।   হুইপ স্বপনের সুস্থতা কামনায় জয়পুরহাটে ছাত্রলীগের দোয়া মাহফিল   ২৪ তম বিসিএস’র ক্যাডারদের সাথে রাজশাহীর পুলিশ সুপারের মতবিনিময়   গাড়িতে আগুন পল্টনে একজনের দায় স্বীকার, দুইজন রিমান্ডে   রাজশাহীতে ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক   জয়পুরহাটে বিএনপির আহবায়ক কমিটির পরিচিতি সভা   রাজশাহীর রাজপাড়া থানা ছাত্রদলের আহবায়ক কমিটি ঘোষণা   কান্সারে আক্রান্ত বগুড়ার ভবানীপুরের শওকত বাঁচতে চায়   কলাপাড়ায় সেচ্ছাসেবক দলের কর্মী সম্মেলন অনুষ্ঠিত।।   বাসট্যান্ডে ড্রামের ভেতর পাওয়া লাশটি গৃহবধূ সাবিনার   মা-বাবাকে মেরে হাসপাতালে পাঠানোর অপরাধে মেয়ে গ্রেফতার।   সেনারা আরও দক্ষ হয়ে দেশ গড়বে, প্রধানমন্ত্রীর আশা |   আমার নির্বাচনী এলাকার প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান উন্নত সম্বৃদ্ধ শিক্ষাঙ্গন তৈরী করতে চাই মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।   গোলাম সরোয়ার সাঈদীর জানাজা ও দাফন সম্পন্ন।   আজ বাউফলে নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে পালিত হয়েছে সশস্ত্র বাহিনী দিবস।   প্রধানমন্ত্রীর সেলাই করা ও মাছ ধরার ছবি ভাইরাল।   ২৪ ঘন্টা না পেরোতেই ড্রামভর্তি নারীর লাশের রহস্য উদঘাটন করলেন ওসি আফজাল।   বরিশালে সরকারি ছাগল উন্নয়ন খামার ও খামারীদের উপকরণ ও পুরস্কার বিতরণ।   জয়পুরহাটে ট্রাক্টরের ধাক্কায় পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির এলাকা পরিচালকের মৃত্যু   বরিশালে যুব প্রতিবন্ধী আইটি প্রতিযোগীতা সম্পন্ন।
error: কপি করা থেকে বিরত থাকুন !!