শনিবার ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
ই-পেপার   শনিবার ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ


যৌতুকের যন্ত্রণায় অতিষ্ট রোজিনা
প্রকাশ: ৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১০:৪৩ পূর্বাহ্ণ |
অনলাইন সংস্করণ

যৌতুকের যন্ত্রণায় অতিষ্ট রোজিনা
রাইসুল ইসলাম ফুল রাজিবপুর কুড়িগ্রামঃ কুড়িগ্রামের রাজীবপুরে স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির অমানুষিক নির্যাতনের শিকার গৃহবধু রোজিনা খাতুন বিচার চায়। যৌতুকের দাবিতে স্বামী শফি আলম কারনে অকারনে, উঠতে বসতে নির্যাতন চালায় রোজিনার ওপর। স্বামীর সঙ্গে নির্যাতনে অংশ নেয় শ্বাশুরি সুফিয়া খাতুনও। সর্বশেষ গত এক মাস আগে ৪ লাখ টাকা যৌতুকের জন্য মারপিট করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়া হয় স্ত্রীকে। এরপর আর কোনো খোঁজ খবর নেয়া হয়নি। নির্যাতনের শিকার রোজিনা খাতুন তার তিন সন্তান নিয়ে এখন বাবার বাড়িতে অবস্থান করছে। নির্যাতনের শিকার গৃহবধু রোজিনা খাতুন অভিযোগ করে বলেন, ‘কয়েক মাস আগে আমার বাবা মারা যায়। ৪লাখ টাকা যৌতুকের জন্য স্বামী মারপিট করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। তার দুই দিন আগে শ্বাশুরীও আমাকে মারধোর করে। রাতে খাবার দিত না। কারনে অকারনে আমাকে খুব কষ্ট দিত। মাঝে মাঝেই খাবার না দিয়ে যন্ত্রণা দিত আমাকে। বাড়ি থেকে বের করে দেয়ার সময় বলে দেয় ৪লাখ টাকা না আনলে তোকে তালাকা দিয়া দিব। ছোট ছোট তিনটা সন্তান রয়েছে আমার। এক মাস থেকে বাবার বাড়িতে আছি একবারের জন্য খোঁজখবরও নেয়নি।’অভিযোগে জানা গেছে, ১৫ বছর আগে পারিবারিক ভাবে দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার পান্তামমারী গ্রামের সেফাত আলীর মেয়ে রোজিনা খাতুনের সঙ্গে বিয়ে হয় রাজীবপুর উপজেলার বালিয়ামারী ব্যাপারি পাড়া গ্রামের নুর মোহাম্মদ’র পুত্র শফি আলমের। বিয়ের সময় একজোরা গরু ও নগদ ৫০ হাজার টাকা দেয়া হয় জামাইকে। বিয়ের কিছু দিন পর শুরু হয় নির্যাতন। যৌতুকের জন্য নির্যাতনের শিকার রোজিনা খাতুন বাবার বাড়ি থেকে দু’দফায় ১ লাখ টাকা নিয়ে তুলে দেয় স্বামীর হাতে। কিছু ভালো থাকার পর আবার শুরু হয় নিযার্তন। নির্যাতন করে বাড়ি থেকে বের করেও দেয়া হয়। এ নিয়ে পারিবারিক ভাবে একাধিকবার মিমাংশা করেও দেয়া হয়। কিন্তু যৌতুক লোভি শফি আলমের যৌতুক চাহিদা শেষ হয় না। নির্যাতনের শিকার রোজিনার মা বলেন, ‘তাদের ঘরে তিনটি সন্তান রয়েছে। মেয়ের বাবাও মারা গেছে। এখন নতুন করে ফন্দি করছে ৪ লাখ টাকা যৌতুক দিতে হবে। কিন্তু অত টাকা কিভাবে দিব। আমার আরো সন্ত্মান রয়েছে। এক মেয়ের পিছে জমি জিরাত সব শেষ করলে অন্য ছেলেমেয়েরা পথে বসবে। তারপরও মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে আরো এক লাখ টাকা যোগার করেছি কিন্তু মেয়ের শ্বশুর বাড়ির চাহিদা ৪ লাখ টাকাই দিতে হবে। এ অবস্থায় আমরা বড়ই বিপদে আছি।’অভিযোগ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে যৌতুক লোভি শফি আলম বলেন, ‘মাইনসে শ্বশুর বাড়ি থেকে কত কিছু পায়। আর আমি মাত্র ৪ লাখ টাকা চেয়েছি। এই টাকা দিয়ে একটা সিএনজি অটো রিক্সা কিনব। সেটাই দিচ্ছে না। টাকা না দিলে আমি বউ রাখব না। সেটা সাফ সাফ জানিয়ে দিয়েছি।’




এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

প্রকাশক: সৈয়দ এমরান আলী রিপন

সম্পাদক: রোমান চৌধুরী

মোবাইলঃ ০১৭১১৯৫৭২৬৩ / 09639298200

ই-মেইলঃ barisalpress247@gmail.com
অফিস : সৈয়দ মহল, জানুকি সিং রোড,কাউনিয়া,বরিশাল

Design & Developed by
  স্বাস্থ্য সেবায় জেলায় প্রথম খানসামা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স।   জাহাজমারা সৈকতের তীরে ভেসে এলো ইরাবতী ডলফিন   উজিরপুরের বামরাইলে বিট পুলিশিং সেবার উদ্ভোধন   মেহেন্দিগঞ্জে রাতের আঁধারে ব্যবসায়ীর উপর হামলা ও ছিনতাই, আহত ১।   রাজশাহীতে একে অপরকে চাকু মেরে আহত করল দুই বন্ধু   আহমদ শফীর মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শোক |   রাজিবপুরে সাধারণ মানুষের নিজস্ব অর্থায়নে বাঁশের সাঁকো নির্মাণ   উজিরপুর উপজেলার হারতা বিবাহিত ও অবিবাহিতদের মাঝে প্রতি ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত।   ভাঙ্গুড়া রিপোর্টার্স ইউনিটি ও দৈনিক আমাদের বড়ালের যৌথ উদ্যোগে নৌকা ভ্রমণ   নাটোরের সিংড়ায় কৃষকের মরদেহ উদ্ধার   খালিদ মাহমুদ চৌধুরীর রোগ মুক্তি কামনায় জেলা আওয়ামী লীগের দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত   বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশুর ইচ্ছাপূরণ করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা   গুরুদাসপুরে আওয়ামীলীগের দু পক্ষের সংর্ঘষে ৪ জন আহত একজনের অবস্থা সংকটপন্ন   ১৪ অক্টোবর থেকে ৪ নভেম্বর ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ   বিএমপি দক্ষিণ বিভাগে মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত।   বরিশাল র‌্যাব-৮ এর অভিযানে ৫ মাদক ব্যবসায়ী ফেন্সিডিল সহ আটক   রৌমারী উপজেলায় নকল সিনজেন্টা কম্পানি নামে ভেজাল কীটনাশক ব্যবসায়ীকে ভ্রাম্যমান আদালতে ৩ মাসের জেল   কলাপাড়ায় পেঁয়াজের মূল্য বৃদ্ধি করায় ব্যবসায়ীকে জরিমানা   বাবুগঞ্জে মোবাইল কোর্ট অভিযানে বিভিন্ন অপরাধে ৫৩ হাজার টাকা জরিমানা।   উজিরপুর উপজেলার সাতলায় উপজেলা চেয়ারম্যানের হস্তক্ষেপে মন্দিরের দন্দের অবসান।