মঙ্গলবার ৬ই জুন, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ ২৩শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
ই-পেপার   মঙ্গলবার ৬ই জুন, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

কলাপাড়ায় যুবদল নেতা মাকসুদে অতিষ্ঠ ব্যাবসায়ী সাধারণ মানুষ।
প্রকাশ: ১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ৫:০৫ অপরাহ্ণ |
অনলাইন সংস্করণ

কলাপাড়ায় যুবদল নেতা মাকসুদে অতিষ্ঠ ব্যাবসায়ী সাধারণ মানুষ।

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি:

পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলা যুবদলের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মাকসুদের কাছে হঠাৎ জিম্মি হয়ে পড়েছে স্থানীয় ব্যবসায়ীসহ সাধারন মানুষ।

বুধবার(১ফেব্রুয়ারী) সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করে সাধারণ মানুষ ও ব্যবসায়ীরা জানান,

মাকসুদকে চাঁদা না দিয়ে ব্যবসা করতে পারছে না কোন ব্যবসায়ী। দোকান থেকে পন্য নিয়ে টাকা না দেয়া, নিজ হাতে দোকানের ক্যাশ বাক্স থেকে টাকা হাতিয়ে নেয়া, নিজস্ব ক্যাডার বাহিনী নিয়ে রাতভর আড্ডা দেয়া, রাতে ব্যবসায়ীদের দোকানের পন্য চুরি ও ছিনতাইসহ একাধীক অভিযোগ রয়েছে এই যুবদল নেতা মাকসুদের বিরুদ্ধে। তার অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে এলাকাবাসী। ভয়ে মুখ খুলছে না অনেকেই। অদৃশ্য কারনে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা-কর্মীরাও নিরবে সহ্য করছে তার অত্যাচার।

একজন উপজেলা যুবদল নেতা বর্তমান সময়ে কিভাবে প্রকাশ্যে চাঁদাবাজী করার সাহস পায় সে প্রশ্ন এখন স্থানীয় সকলের মুখে মুখে।

বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যায়, উপজেলার নীলগঞ্জ ইউনিয়নের সলিমপুর গ্রামের বাসিন্দা এমদাদুল ইসলাম কাবুল মজুমদারের ছেলে মাকসুদ মজুমদার। বিএনপি’র সময়কালে সরকারী মোজাহার উদ্দিন বিশ্বাস কলেজের এজিএস ছিলেন । তৎকালীন সময়ে ক্যাডার ভাগিনা মাকসুদ হিসাবে পরিচিত ছিলো তার। সেসময় শুধু সাধারন মানুষের উপর অত্যাচার করেই ক্ষ্যান্ত হননি তিনি। নিজ পরিবারের সদস্যদের উপরেও নির্যাতন চালান মাকসুদ। নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে তার মামা পা ভেঙ্গে দেন মাকসুদের। এরপর কিছুদিন শান্ত ছিলেন তিনি। স্বস্তির নিশ্বাস ছেড়েছিলো এলাকাবাসী।

আবারও বেপরোয়া হয়ে উঠেছেএই উপজেলা যুবদলের নেতা । অসহায় মানুষ ও ব্যবসায়ীদের উপর চালাচ্ছে তার চাঁদাবাজীর হুলিয়া। তার আপন ছোট ভাই বিজন মজুমদার ও স্থানীয় বাসিন্দা মঙ্গল চন্দ্র হাওলাদারের পুত্র বিজন হাওলাদরসহ একাধিক সাঙ্গপাঙ্গ নিয়ে একচ্ছত্র আদিপত্ত বিস্তার করেছে স্থানীয় সলিমপুর বাজারসহ ইউনিয়নের একাধিক এলাকায়। তাদের কাছে বিভিন্ন ধরনের দেশীয় অস্ত্র থাকায় সর্বক্ষন আতংক ও ভীত হয়ে থাকে সাধারন মানুষ। প্রকাশ্যে চাঁদাবাজীসহ বিভিন্ন ধরনের হয়রানী করছে স্থানীয় ব্যবসায়ীসহ সাধারন মানুষদের।

পেট্রলের দোকান থেকে নিজ হাতে পেট্রল নিয়ে টাকা না দেয়া, দোকান থেকে বাকী নিয়ে টাকা না দেয়া, জোড় করে ক্যাশ বাক্স থেকে টাকা হাতিয়ে নেয়াসহ একাধিক কর্মকান্ড করে বেড়াচ্ছে মাকসুদ। পাওনা টাকা চাইতে গেলে তার উপর চলে নানা ধরনের নির্যাতন। কেহ মুখ খুললে তার উপর চলে অমানুবিক অত্যাচার। এমনকি রাতের অন্ধকারে দোকানের মালামাল আত্মসাৎ করে মুখ বন্ধ করতে বাধ্য করেন ব্যবসায়ীদের।

গতসোমবার দুপুরে স্থানীয় এক ব্যবসায়ীর কাছে তার দাবীকৃত চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে ওই ব্যবসায়ীর উপর অত্যাচার ও হামলার ভিডিও ফুটেজ মোবাইলে রেকর্ড হলে বিষয়টি সকলের নজরে আসে। নির্যাতিত ওই ব্যবসায়ী হারুন বলেন, দুইদিন আগে আমার দোকানের ক্যাশ বাক্সে হাত দিয়ে টাকা নিলে আমি প্রতিবাদ জানাই। এতে ক্ষিপ্ত হয় মাকসুদ। ঘটনার দিন আমি স্থানীয় একটি চায়ের দোকানে বসে চা খাচ্ছিলাম। এসময় মাকসুদ এসে আমার কাছে দশ হাজার টাকা চাঁদা দাবী করেন। আমি তা দিতে অস্বিকার করলে আমাকে মারধরসহ ওই দোকানে ভাঙ্গচুর করেন। পরে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে আমার উপর হামলার চেষ্টা চালায়। জীবনের ভয়ে দোকানের পিছন দিয়ে পাশের একটি বাড়িতে গিয়ে আশ্রয় নিয়ে ৯৯৯ এ কল করে কলাপাড়া থানা পুলিশের সাহায্য কামনা করি। পরে পুলিশ ঘটনা স্থলে গিয়ে আমাকে উদ্ধার করে। তিনি আরোও বলেন, এই মাকসুদ সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোক। তার কাছে এলাকার প্রতিটি ব্যবসায়ী জিম্মি হয়ে পরেছে। কেহ মুখ খুললে তার উপর বিভিন্নভাবে নির্যাতন চালায় মাকসুদ। আমি নিজেও এখন শংকায় রয়েছি। আবারও যে কোন সময় তার উপর হামলা চালাতে পারে বলে মনে করছেন নির্যাতিত ব্যবসায়ী হারুন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় একাধীক ব্যবসায়ী বলেন, সন্ত্রাসী মাকসুদের অত্যাচারে আমরা অতিষ্ঠ হয়ে পরেছি।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মোঃ মাকসুদ বলেন, আমার বিরুদ্ধে এগুলো সব ষড়যন্ত্র। আমি একজন ব্যবসায়ী। ওই বাজারে আমার তৈল ও ফ্লাক্সির দোকান রয়েছে। এছাড়া আমার ডিশ ব্যবসাও রয়েছে।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, দোকান ঘড় ভাংচুর ও মারধরের ঘটনা ঘটেছে। শালিস বৈঠকে তা মিমাংসা করার কথা ছিলো কিন্তু অভিযুক্ত মাকসুদ মজুমদার সেখানে আসেনি। তাই আমি নির্যাতিত ওই ব্যবসায়ীকে আইনের আশ্রয় নিতে বলেছি।

কলাপাড়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জসিম বলেন, ৯৯৯ এ কল করলে তাৎক্ষনিক পুলিশ সদস্য পাঠিয়ে তাকে ঘটনাস্থল থেকে নিয়ে আসা হয়। পরবর্তীতে এবিষয়ে কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। তবে, অভিযোগ পাওয়া গেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।




এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

পুরোন সংবাদ খুজুন
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  
Enjoy Network

সর্বাধিক পঠিত

প্রকাশক: সৈয়দ রিপন

সম্পাদক: রোমান চৌধুরী

মোবাইলঃ ০১৭১১৯৫৭২৬৩ / 09639298200

অফিস : জানুকি সিং রোড,কাউনিয়া,বরিশাল

ই-মেইলঃ barisalpress247@gmail.com

Design & Developed by
  চাপের মুখে বিমার অর্থ ছাড় না দেওয়ার পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর   করোনার তৃতীয় ও চতুর্থ ডোজ সাময়িক বন্ধ   বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর বার্ষিক শীতকালীন মহড়া ‘উইনটেক্স’ সমাপ্ত   বঙ্গবন্ধুর ওপর রচিত বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী   মালিতে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর শান্তিরক্ষা কন্টিনজেন্ট প্রতিস্থাপন   শিশুদের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো শুরু   ডিজিটাল সিস্টেমে ভাষা শেখার ব্যবস্থা করে দিয়েছি: প্রধানমন্ত্রী   শান্তিরক্ষা মালি গেলেন ১৪০ পুলিশ সদস্য   নতুন শিক্ষাক্রমে সপ্তাহে ৫ দিন ক্লাস, ২ দিন বন্ধ : শিক্ষামন্ত্রী   মহামান্য রাষ্ট্রপতির সাথে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও নবনির্বাচিত রাষ্ট্রপতির সৌজন্য সাক্ষাৎ   খানসামায় অনুমোদন ছাড়াই জৈব সার তৈরী ও বিক্রি ২০ হাজার টাকা জরিমানা   আওয়ামী লীগ দেশ ছেড়ে পালায় না: প্রধানমন্ত্রী   ডিসিদের ২৫ নির্দেশনা প্রধানমন্ত্রীর   পিতৃপরিচয়হীন সন্তানের অভিভাবক হবেন মা: হাইকোর্টের রায়   তিন দিনের সফরে যে আশ্বাস দিয়ে গেলেন বিশ্বব্যাংকের এমডি   স্বপ্নের পদ্মা সেতু দেশের মানুষের কাছে অষ্টম আশ্চর্যের মত বিসিসি মেয়র সাদিক আব্দুল্লাহ্   ভিডিও কনফারেন্সে পায়রা সমুদ্র বন্দরের উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী   আতংকে সমুদ্র পাড়ের মানুষ ঘুর্ণিঝড় সিত্রাং মোকাবেলায় প্রস্তুত কলাপাড়া প্রশাসন   বঙ্গোপসাগরে সুস্পষ্ট গভীর নিম্নচাপঃ ৩ নম্বর সতর্কতা সংকেত জারি   বাংলাদেশে যেন খাদ্যাভাব দেখা না দেয়, সে ব্যাপারে সচেতন থাকতে হবে
error: কপি করা থেকে বিরত থাকুন !!