বুধবার ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ ৮ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
ই-পেপার   বুধবার ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ


কিছু সুশীল শ্রেণি গণতন্ত্র খুঁজে বেড়ান, গণতান্ত্রিক পরিবেশে তারা গণতন্ত্র পায় না | প্রধানমন্ত্রী
প্রকাশ: ৩০ আগস্ট, ২০২০, ৮:৩১ অপরাহ্ণ |
অনলাইন সংস্করণ

কিছু সুশীল শ্রেণি গণতন্ত্র খুঁজে বেড়ান, গণতান্ত্রিক পরিবেশে তারা গণতন্ত্র পায় না | প্রধানমন্ত্রী
মোহাম্মদ মাহমুদুল হাসান |
ঢাকা |
এক শ্রেণির সুশিল সমাজের সমালোচনা করেছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, আমাদের অনেক বুদ্ধিজীবী, অনেকেই গণতন্ত্র খুঁজে বেড়ান। কিন্তু তারা গণতন্ত্র খুঁজে হয় জরুরী অবস্থা যখন জারি হয় তখন, অথবা মিলিটারি ডিকটেটর আসলে তখন তারা গণতন্ত্রের স্বাদ পান। কিন্তু গণতান্ত্রিক পরিবেশে তারা গণতন্ত্র পায় না। তাদের চরত্রিটা হচ্ছে চাটুকারিতা করা, তোষামোদি করা। যারা এভাবে হঠাৎ করে ক্ষমতা দখল করে তারা এই তোষামোদকারীদেরকে হায়ার (ভাড়া) করে। কিন্তু সত্যিকার গণতান্ত্রিক ধারা যখন থাকে তখন এদের মূল্য থাকে না। তখন যতই বুকে লেখে রাখুক ইউজ মি অথবা আমাকে ব্যবহার কর। গণতান্ত্রিক সরকার তো তাদের ব্যবহার করবে না। রোববার (৩০ আগস্ট) জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি একথা বলেন।গনভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু এভিনিউ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংযুক্ত হয়ে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগ সভাপতি বঙ্গবন্ধু কন্যা। জাতির পিতার নেতৃত্বে যুদ্ধ বিধস্ত স্বাধীনতাপ্রাপ্ত বাংলাদেশের এগিয়ে যাওয়ার কথা তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর অনুমোদন লাভ পায়। ১২৬টা দেশ বাংলাদেশকে স্বীকৃত দেয়। জাতিসংঘ, ওআইছি, কমনওয়েলথসহ প্রত্যেকটি প্রতিষ্ঠানের সদস্য পদ পাই। আন্তর্জাতিক সকল সংস্থায় বাংলাদেশ তার সদস্য পদ অর্জন করে এত অল্প সময়ের মধ্যে কোন দেশ এভাবে অর্জন করতে পারেনি। জাতির পিতার নেতৃত্বে ছিল বলে এটা সম্ভব হয়েছিল। কিন্তু এত কিছু পরেও কিছু লোক তো কিছুই নাকি হয়নি। কোন উন্নয়নই নাকি হয়নি কোন কিছুই নাকি করেননি। সেই কথা বলা লেখা শুরু করে। ইয়াহিয়া খান যা করেছিল জিয়াউর রহমানও তাই করেছে এরশাদও তাই করেছে। গণতন্ত্র মুখে ছিল কিন্তু বাস্তবে কি ছিল? জিয়াউর রহমান ৭৫ পরবর্তি ক্ষমতায় আসার পর আমাদের পার্টির কত মানুষ, তাদেরকে সে নির্মমভাবে হত্যা করেছে। তিনি বলেন, এক একজনকে তুলে নিয়ে গেছে খবরও পাইনি। সেই সাথে একটার পর এক ক্যু হয়েছে। সেনাবাহিনীর হাজার হাজার সদস্য, অফিসার এবং যারা বিশেষ করে মুক্তিযোদ্ধা প্রত্যেকটা মুক্তিযোদ্ধা অফিসার যারা রনাঙ্গণে যুদ্ধ করে এই দেশটাকে স্বাধীন করেছে তাদেরকে হত্যা করেছে জিয়াউর রহমান। জেলাখানায় চার জাতীয় নেতার হত্যা। মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে জিয়াউর রহমানের যেন আলাদা একটা রাগই ছিল। সেনা অফিসার যে কয়জন সবাইকে হত্যা করেছে এবং সৈনিকরা অনেকে জানতই না তার কি অপরাধ। ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে প্রতিরাতে ৮-১০ টা করে ফাঁসি হত। তাদের চিৎকারে কারাগারের আকাশ বাতাস ভারি হত। এমন দিন নাই জিয়াউর রহমানের হাতে মানুষের মৃত্যুদণ্ড হয়নি বা তাদের মারেনি। এভাবে সারাদেশে একটা খুনের রাজস্ব কায়েম করেছিল। তার উপর জাতির পিতার হত্যাকারীদের বিভিন্ন দূতাবাসে চাকরি দিয়ে পুরস্কৃত করেছিল। এখানে গণতন্ত্রটা কোথায়? মার্শাল ল অর্ডিন্যান্স জারি করে যারা ক্ষমতায় আসে তারা গণতন্ত্র দিতে পারে না। প্রধানমন্ত্রী বলেন, জনগণের মৌলিক চাহিদা পূরণ করা জনগণের ভাগ্য পরিবর্তন করা, জনগণের পেটে খাবার জোগাড় করা, তাদের শিক্ষার ব্যবস্থা করা, তাদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা, তাদের মৌলিক চাহিদা পূরণ এটাই তো তাদের মূল লক্ষ্য। আর একমাত্র গণতন্ত্রিক সরকার হলেই সেটা সম্ভব। বাংলাদেশের মানুষ ৭৫ এর পর প্রথম উপলবদ্ধি করেছে যখন আওয়ামী লীগ ২১ বছর পর সরকার গঠন করেছে তখনই তারা বুঝতে পেরেছে অন্তত সরকার যে তাদের সেবক তাদের সেবা করে তাদের কল্যাণে কাজ করে একমাত্র তখনই তারা উপলবদ্ধি করেছে। কারণ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ জাতির পিতার হাতে গড়া সংগঠন আমরা সেই আদর্শ বুকেই নিয়েই কাজ করি।




এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

প্রকাশক: সৈয়দ এমরান আলী রিপন

সম্পাদক: রোমান চৌধুরী

মোবাইলঃ ০১৭১১৯৫৭২৬৩ / 09639298200

ই-মেইলঃ barisalpress247@gmail.com
অফিস : সৈয়দ মহল, জানুকি সিং রোড,কাউনিয়া,বরিশাল

Design & Developed by
  উজিরপুরে উন্মুক্ত জলাশয়ে বিভিন্ন জাতের মাছের পোনা অবমুক্ত করা হয়   ‌মেহেন্দিগঞ্জের বিভিন্ন এলাকায় সাংসদ পংকজ নাথ’র আশু রোগমুক্তি কামনায় দোয়া অনুষ্ঠিত   কোতয়ালী মডেল থানা বিএমপি কর্তৃক নাজির মহল্লায় বিট পুলিশিং কার্যালয় উদ্বোধন ।   ৫ দফা দাবিতে বৃহত্তর রিক্সা শ্রমিক ইউনিয়ন বরিশালের মানববন্ধন ।   আত্রাইয়ে টিসিবি’র পণ্য বিক্রি,পণ্য পেতে দীর্ঘ লাইন   সাবেক ছাত্র দল নেতা এখন যুবলীগ এর ত্রাস সরকারি জমি দখল করে ব্যক্তিগত অফিস   রৌমারীতে কলেজ ছাত্রের মুক্তির দাবিতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন   বেতাগীতে মোবাইল নেটওয়ার্ক ও ইন্টারনেটের মানোন্নয়নের দাবি   রাজিবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন-সম্পাদক হিসাবে আকবর হোসেন হিরো কে দেখতে চায় তৃনমূল নেতা-কর্মীরা।   পটুয়াখালী রাঙ্গাবালীতে বাড়তি দামে সার বিক্রয়   কলাপাড়া উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারন-সম্পাদক হিসাবে সালাম বিশ্বাসকে চায় তৃনমূল।   কিটের অনুমতি চেয়ে সরকারের কাছে আর আবেদন করব না: ডা. জাফরুল্লাহ   যেভাবে উত্থান কোটিপতি ড্রাইভার মালেকের   ২৪ সেপ্টেম্বর শুরু হচ্ছে শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক অনলাইন দাবা   এবার মালদ্বীপে শাকিব খান।   সারা বছর চলবে হজের প্রাক-নিবন্ধন   মৃত ব্যক্তির জন্য জীবিতদের যে আমল করতে বলে ইসলাম   দেশে করোনায় মৃত্যু ৫ হাজার ছাড়াল   জাতিসংঘকে কার্যকর আন্তর্জাতিক সংস্থা হিসেবে গড়তে হবে | প্রধানমন্ত্রী   শিক্ষা প্রতিষ্ঠা‌নের ৩য় শ্রেণী কর্মচারীদের বৈষম‌্য দূরকরণ এখন সম‌য়ের দা‌বি- বাক‌শিস সভাপ‌তি।