শনিবার ২৮শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
ই-পেপার   শনিবার ২৮শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

ছয় দফা দাবি ছিল বঙ্গবন্ধুর নিজস্ব চিন্তার ফসল | প্রধানমন্ত্রী
প্রকাশ: ২৬ আগস্ট, ২০২০, ১১:২৭ অপরাহ্ণ |
অনলাইন সংস্করণ

ছয় দফা দাবি ছিল বঙ্গবন্ধুর নিজস্ব চিন্তার ফসল | প্রধানমন্ত্রী
মোহাম্মদ মাহমুদুল হাসান | ঢাকা |
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ঐতিহাসিক ছয় দফা দাবিসমূহ ছিল জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নিজস্ব চিন্তার ফসল। ঐতিহাসিক এ বিষয় গঠনে অন্য কেউ জড়িত ছিল না, যা দেশকে এগিয়ে নিয়ে গিয়েছিল স্বাধীনতার দিকে। তিনি বলেন, ‘অনেকে ছয় দফা দাবি সম্পর্কে অনেক কিছু বলতে চান। কেউ কেউ বলেন যে, এটি অন্য কারও পরামর্শে হয়েছিল। কিন্তু আমি জানি যে এটি অবশ্যই তার (বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান) নিজস্ব চিন্তাভাবনার ফসল ছিল।’ বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির আয়োজনে বুধবার ঐতিহাসিক ৬ দফা দিবসের কুইজ প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী তার সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি এই কর্মসূচিতে যোগ দেন। দেশের এই ঐতিহাসিক দাবির পটভূমি স্মরণ করে তিনি বলেন, ১৯৫৮ সালে বঙ্গবন্ধুকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল এবং ১৯৬৯ সালের ১৭ ডিসেম্বর তিনি মুক্তি পান। তখন রাজনীতি নিষিদ্ধ ছিল। বঙ্গবন্ধু ঢাকার বাইরে যেতে পারেননি। এ সময় তিনি আলফা বীমা সংস্থায় যোগ দেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, তাজউদ্দীন আহমদও ওই সময় গ্রেপ্তার হয়েছিলেন এবং মুক্তি পাওয়ার পরে তিনি তার কাজের জন্য নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় চলে যান। পরে বঙ্গবন্ধু নিজেই নারায়ণগঞ্জে গিয়ে তাজউদ্দীন আহমদকে ঢাকায় নিয়ে এসে আলফা বীমা সংস্থায় চাকরি দিয়েছিলেন। এছাড়া মোহাম্মদ হানিফকে বঙ্গবন্ধু আলফা বীমা সংস্থায় নিজের ব্যক্তিগত সহকারী হিসেবে নিয়োগ দিয়েছিলেন বলেও জানান তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু সব সময় চিন্তা করতেন, সেই চিন্তাভাবনাগুলো লিখে রাখতেন এবং ওই লেখাগুলো হানিফকে দিতেন টাইপ করার জন্য। এজন্য কেবল হানিফই এ (ছয় দফা দাবি) সম্পর্কে জানতেন কারণ তিনি সেটি টাইপ করেছিলেন, অন্যথায় এটি সম্পর্কে কেউ জানতো না।’ তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর চিন্তাভাবনা থেকে এই ছয় দফা দাবি বের হয় ১৯৬৫ সালে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যকার তিন সপ্তাহ ধরে চলা যুদ্ধের পর এবং তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান (বর্তমান বাংলাদেশ) তখন সম্পূর্ণরূপে প্রতিরক্ষাহীন হয়ে পড়েছিল। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ছয় দফা দাবি ঘোষণার পরিপ্রেক্ষিতে বঙ্গবন্ধু এবং আওয়ামী লীগের অন্যান্য শীর্ষস্থানীয় নেতাদের গ্রেপ্তারের পরে বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব এই দাবিগুলোকে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠা আন্দোলন এবং এর প্রচারণা এগিয়ে নিতে মহান ভূমিকা পালন করেছিলেন। ‘বাংলাদেশের জন্য আমার মায়ের অবদানের কথা কল্পনাও করা যায় না। তিনি সবসময় জানতেন যে আমার বাবা কী চান এবং সে সম্পর্কে তিনি খুব সচেতন ছিলেন,’ যোগ করেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ড বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা বন্ধ করে দেয়। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের বেশিরভাগ সদস্যকে নির্মমভাবে হত্যার বিষয়ে শেখ হাসিনা বলেন, এ হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে পরাজিত শক্তি দেশে আত্মপ্রকাশ করেছিল এবং তারা দেশের বিজয়কে ধ্বংস করার চেষ্টা করেছিল। ‘আমি মনে করি এমন কোনো সুযোগ এখন আর নেই। ইতিহাস তার নিজের পথে ভ্রমণ করে, কেউ তা মুছে ফেলতে পারে না এবং এটি আজ প্রতিষ্ঠিত,’ যোগ করেন তিনি। জাতির পিতার দেখানো পথে অনুসরণ করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন প্রধানমন্ত্রী। অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু এবং ঐতিহাসিক ছয় দফা দাবির ওপর একটি প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শিত হয়।




এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

পুরোন সংবাদ খুজুন
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০  

সর্বাধিক পঠিত

প্রকাশক: সৈয়দ এমরান আলী রিপন

সম্পাদক: রোমান চৌধুরী

মোবাইলঃ ০১৭১১৯৫৭২৬৩ / 09639298200

অফিস : সৈয়দ মহল, জানুকি সিং রোড,কাউনিয়া,বরিশাল

ই-মেইলঃ barisalpress247@gmail.com

Design & Developed by
  রাজশাহী বিভাগে করোনায় ১ জনের মৃত্যু, জেলায় শনাক্ত ৭   রাজশাহীতে দিনভর দেখা মেলেনি সূর্যের, বাড়ছে শীত   রাজশাহীর শাহমখদুম মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষের মারধরে ১০ জন ছাত্রছাত্রী আহত   জয়পুরহাটে জেলা আ.লীগের সম্মেলন সফল করতে বিশেষ বর্ধিত সভা   বেতাগীতে ব্যস্ত সময় পাড় করছে লেপ-তোষকের দোকানে কারিগররা   কলাপাড়ায় কার্পেটিং রাস্তা এখন মরন ফাঁদ, ৫০ ফিটে ৩ টি বাঁক   দুমকিতে বিদেশী মদসহ যুবক আটক   রাঙ্গাবালীতে নারী দোকানিদের ‘বউবাজার’   মেট্রোরেলে যাত্রী পরিবহনে জানুয়ারিতেই আসছে ৫ সেট ট্রেন   পদ্মা সেতুর ৩৯তম স্প্যান বসানোর প্রস্তুতি চলছে   ফ্রিল্যান্সারও এক ধরনের চাকরি, এটা হচ্ছে নিজেই নিজের বস | প্রধানমন্ত্রী   রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক আলী যাকেরের মৃত্যুতে।   সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে বইছে নির্বাচনের হাওয়া   ভাংগুড়া পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের চলমান ৫ বছরের সাফল্য ও ব্যর্থতার আলোচনা সভা অনুষ্টিত।   রাজধানীর খাল রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব পাচ্ছে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন   চরমোনাই ঐতিহ্যবাহী মাহফিল শুরু আগামীকাল   কলাপাড়ায় পানিতে ডুবে ৩ বছরের শিশুর মৃত্যু।   রাজশাহীতে ৯ জন মাদকসেবী গ্রেফতার   উজিরপুরে কৃষি পুনর্বাসন ও প্রণোদনা কর্মসূচিতে কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে বীজ ও সার বিতরণ।   সাংবাদিক হুমায়ুন সাদেক চৌধুরি করণা ক্রমণে প্রাণ হারালেন
error: কপি করা থেকে বিরত থাকুন !!