রবিবার ১লা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৭ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
ই-পেপার   রবিবার ১লা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

তিন মাস হাইতিতে বসে প্রেসিডেন্টকে হত্যার পরিকল্পনা করে খুনিরা
প্রকাশ: ১২ জুলাই, ২০২১, ৪:১৩ অপরাহ্ণ |
অনলাইন সংস্করণ

তিন মাস হাইতিতে বসে প্রেসিডেন্টকে হত্যার পরিকল্পনা করে খুনিরা

নিউজ ডেস্কঃ হাইতির প্রেসিডেন্ট জোভেনেল মইসির মূল ঘাতক দলের সদস্যরা বিদেশি। তাঁরা প্রায় তিন মাস আগে হাইতিতে গিয়ে এই হত্যাকাণ্ডের পরিকল্পনা করেন। গত মাসে ডোমিনিকান রিপাবলিক থেকে কয়েকজন গিয়ে তাঁদের সঙ্গে যোগ দেন। বিশ্বকে নাড়া দেওয়া এই হত্যাকাণ্ডের তদন্ত–সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা এমনটাই বলছেন।

হাইতির রাজধানী পোর্ট–অ–প্রিন্সে প্রেসিডেন্ট জোভেনেল মইসির (৫৩) ব্যক্তিগত বাসভবনে স্থানীয় সময় গত বুধবার প্রথম প্রহরে হামলা চালান একদল বন্দুকধারী। এই আততায়ীদের মধ্যে আমেরিকান নাগরিক দুই হাইতিয়ানও রয়েছেন। তাঁদের সঙ্গে প্রায় দুই ডজন কলম্বিয়ান এই হত্যাকাণ্ডে অংশ নেন। এই হত্যা মিশনের জন্য তাঁরা অস্ত্র, অর্থ, মোবাইল ফোন এবং ভাড়ার গাড়িসহ অন্যান্য সরঞ্জাম জোগাড় করেছিলেন।

তদন্তের দায়িত্বে থাকা হাইতির বিচারিক কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে দেশটির গণমাধ্যম জানিয়েছে, যে দুই আমেরিকান নাগরিককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, তাঁদের মধ্যে জেমস সোলাগেস তদন্তকারীদের বলেছেন, ইন্টারনেটে কাজের প্রস্তাব পেয়ে এই গোষ্ঠীর সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন তিনি। প্রথমে ভেবেছিলেন বিদেশিদের জন্য দোভাষীর কাজ করতে হবে তাঁকে। সোলাগেস দাবি করেছেন, তাঁর বিশ্বাস ছিল হামলাকারীরা হাইতির প্রেসিডেন্টকে হত্যা নয়, তাঁকে গ্রেপ্তার করতে যাচ্ছেন।

বৃহস্পতিবার রাতে রক্তাক্ত অবস্থায় ঘাতকদের সাংবাদিকদের সামনে আনা হয়। তাঁদের একটি গাড়ি থেকে উদ্ধার করা অস্ত্রগুলোও সামনে আনা হয়। তাইওয়ান দূতাবাসের কর্মকর্তারা তাঁদের ওখান থেকে ১১ জন গ্রেপ্তার হওয়ার বিষয়ে নিশ্চিত করেছেন। ঘাতকেরা ওই দূতাবাস প্রাঙ্গণে ঢুকে পড়েছিলেন। গ্রেপ্তার অপর দুই ঘাতককে পোর্ট–অ–প্রিন্সের ঝোপঝাড় থেকে ধরিয়ে দেন স্থানীয় লোকজন।

এই হত্যাকাণ্ডে যে দুই হাইতিয়ান–আমেরিকান গ্রেপ্তার হয়েছেন, তাঁদের আগের ইতিহাস বিবেচনায় এ ধরনের মিশনে যোগ দেওয়া নিয়ে অনেকের মনে কৌতূহল তৈরি হয়েছে। তাঁদের একজন ৩৫ বছর বয়সী জেমস সোলাগেস মূলত হাইতির জাকমেল শহরের বাসিন্দা। তাঁর একটি মেইনটেন্যান্স অ্যান্ড রিপায়ার কোম্পানি রয়েছে। লিংকডইন প্রোফাইল অনুযায়ী, তিনি একজন ‘ডিপ্লোম্যাটিক এজেন্ট’ ছিলেন। ছিলেন হাইতিতে কানাডিয়ান দূতাবাসের দেহরক্ষীদের প্রধান কমান্ডার।

কানাডার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, হাইতির প্রেসিডেন্টকে হত্যায় গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের একজন একসময় তাদের দূতাবাসে ‘দেহরক্ষী’ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। একটি বেসরকারি কনট্রাক্টরের মাধ্যমে তিনি এই দায়িত্বে এসেছিলেন।

লিংকডইনে দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, সোলাগেস বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার একটি শহরে থাকেন। তিনি সেখানে প্রবীণদের সেবাদাতা একটি প্রতিষ্ঠানে কাজ করেন। একটি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান চালানোর পাশাপাশি সোলাগেস হাইতিতে নিজের শহর জ্যাকমেলের একটি দাতব্য সংস্থার পরিচালনা পর্ষদের সভাপতির দায়িত্বে আছেন।
তাঁর তুলনায় গ্রেপ্তার দ্বিতীয় আমেরিকান–হাইতিয়ান সম্পর্কে কম জানা গেছে। ভিনসেন্ট জোসেফ নামের ওই ব্যক্তিও সোলাগেসের মতো ফ্লোরিডায় থাকেন।

হাইতির পুলিশ প্রধান লিওন চার্লস সাংবাদিকদের বলেন, ‘এই দলে ২৮ আততায়ী ছিলেন। তাঁদের ২৬ জন ছিলেন কলম্বিয়ান। তাঁরাই প্রেসিডেন্টকে হত্যার অপারেশনটি চালিয়েছেন। আমরা ১৫ কলম্বিয়ান ওই হাইতিয়ান আমেরিকানকে গ্রেপ্তার করেছি।৩ কলম্বিয়ান নিহত হয়েছেন। পালিয়ে আছেন আরও ৮ জন।’

হাইতি কর্তৃপক্ষের ভাষ্যমতে, প্রেসিডেন্টের হত্যাকারীদের দলে মোট ২৮ বিদেশি ছিলেন। তাঁদের মধ্যে কলম্বিয়ার অবসরপ্রাপ্ত সৈনিকেরা ছিলেন। হত্যাকাণ্ডের পর পোর্ট–অ–প্রিন্সের একটি বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছিলেন ঘাতকদের একাংশ। সেখানে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে কয়েকজন নিহত হন।

কলম্বিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী দিয়েগো মোলানো বলেছেন, ঘাতক দলের অন্তত ছয় সদস্য কলম্বিয়ার সেনাবাহিনীর সাবেক সদস্য। কলম্বিয়ান সংবাদমাধ্যম এল টিয়েম্পো গ্রেপ্তার কলম্বিয়ানদের মধ্যে ম্যানুয়েল আন্তোনিও গ্রোসো গুয়ারিন নামের একজনকে চিহ্নিত করেছে, যিনি কলম্বিয়ান সেনাবাহিনীর এলিট আরবান কাউন্টার–টেররিজম স্পেশাল ফোর্সের সদস্য ছিলেন। হাইতি কর্তৃপক্ষকে সরবরাহ করা গোপন নথি দেখার সুযোগ হওয়ার কথা জানিয়ে এল টিয়েম্পো লিখেছে, স্পেশাল ফোর্সের সাবেক এই সদস্য কলম্বিয়ার সশস্ত্র বাহিনীর অন্তত আরও তিনজন সাবেক সদস্যকে সঙ্গে করে গত ৪ জুন বিকেলে বিমানে করে ডোমিনিকান রিসোর্ট শহর পুন্তা কানায় যান।

এর দুই দিন পর তাঁরা স্থলপথ দিয়ে হাইতিতে প্রবেশ করেন।

গ্রোসো গুয়ারিন হাইতিতে এই মিশনে যাওয়ার আগে ডোমিনিকান রিপাবলিকে কিছু দর্শনীয় স্থানে ঘোরাঘুরি করেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। তাঁর ফেসবুক অ্যাকাউন্টে পোস্ট করা ছবিতে দেখা যায়, ডোমিনিকান রিপাবলিকের রাজধানী সান্তো ডোমিঙ্গোতে প্রেসিডেন্টের প্রাসাদসহ ঐতিহাসিক কিছু জায়গায় ছবি তুলেছেন তিনি। ৬ জুনে পোস্ট করা একটি ছবিতে দেখা যায়, প্রাসাদের বাইরের ফটকের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন তিনি।
এঁদের গ্রেপ্তারের পর হাইতির পুলিশ এখন এই হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারীকে খুঁজছে। যুক্তরাষ্ট্রের ড্রাগস এনফোর্সমেন্ট এজেন্সি থেকে আসার কথা বলে প্রেসিডেন্টের বাসভবনে ঢোকে আততায়ীরা। প্রেসিডেন্টের দেহে ১২টি বুলেট পাওয়া যায়।




সর্বশেষ সংবাদ

পুরোন সংবাদ খুজুন
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  

সর্বাধিক পঠিত

প্রকাশক: সৈয়দ এমরান আলী রিপন

সম্পাদক: রোমান চৌধুরী

মোবাইলঃ ০১৭১১৯৫৭২৬৩ / 01933336108

অফিস : সৈয়দ মহল, জানুকি সিং রোড,কাউনিয়া,বরিশাল

ই-মেইলঃ barisalpress247@gmail.com

Design & Developed by
  বানারীপাড়ায় লকডাউনের বিধি-নিষেধ অমান্য করায় মোবাইল কোর্টে ১১ জনকে অর্থদণ্ড   করোনায় আক্রান্ত খ্যাতনামা নির্মাতা ফারুকী   ৩৩ বছরের রেকর্ড ভেঙে দ্রুততম মানবী জ্যামাইকার হেরাহ   বগুড়ায় মুরগির খাঁচায় মানুষ পরিবহন   লকডাউনের নবম দিনে নির্দেশনা অমান্যের দায়ে আটক ৪৮১   চিত্রনায়িকা একার বাসায় তল্লাশি: ইয়াবা, মদ, গাঁজা উদ্ধার   রোববার দুপুর পর্যন্ত গণপরিবহন চলবে   রবিবার দুপুর পর্যন্ত চলবে লঞ্চ   নওগাঁর আত্রাইয়ে আশ্রয়ন কেন্দ্রে টিকা দেওয়া উদ্যোগ নিলেন ইউএনও   মার্কিন সরকারের নির্দেশে উত্তর কোরিয়ার তেলবাহী জাহাজ আটক   কর্মস্থল খুলে দেয়ার ঘোষণায় ভোলার ইলিশা ফেরিঘাটে যাত্রীদের ভীড়, অসহায় প্রশাসন   ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টে শিশুদের আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কম:ডব্লিউএইচও   আগৈলঝাড়ায় ইউএনও’র অভিযানে মামলা দায়ের, জরিমানা আদায়   ঢাকা যাওয়া নিয়ে বিপাকে বরিশালের পোশাক শ্রমিকরা   কীর্তনখোলায় মরদেহ উদ্ধার   বরিশালের আলোচিত দুটি পরিবারের পাশে জেলা প্রশাসক   ফুলবাড়ীতে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া উপহারের ঘর পরিদর্শন করলেন জেলা মনিটরিং কমিটি   করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২১৮ জন, নতুন আক্রান্ত ৯,৩৬৯ জন   লেবুখালী ফেরীঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীদের ঢল   বড়াইগ্রামে শিশু ধর্ষণ অভিযুক্ত আটক
error: কপি করা থেকে বিরত থাকুন !!