সোমবার ১০ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ২৭শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
ই-পেপার   সোমবার ১০ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

লকডাউনে ফুলের বাজারে ধস, সৌন্দর্যের প্রতিক ফুল এখন গবাদিপশুর খাবার
প্রকাশ: ২১ এপ্রিল, ২০২১, ৩:২৪ অপরাহ্ণ |
অনলাইন সংস্করণ

লকডাউনে ফুলের বাজারে ধস, সৌন্দর্যের প্রতিক ফুল এখন গবাদিপশুর খাবার
নিউজ ডেস্কঃ কিছুদিন আগেও মাঠের পর মাঠ বাতাসে দোল খাচ্ছিল লিলিয়াম, গাঁদা, রজনীগন্ধা, গোলাপ ও গ্লাডিয়াসসহ নানা জাতের ফুল। এসব এলকার কৃষকরা ফুলের রঙে রঙিন স্বপ্নে বিভোর ছিল। এছাড়া ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা, লাউতলা ও কালীগঞ্জ মেইন বাসস্ট্যান্ড দুপুর গড়ালে ফুলে ফুলে ভরে যেত। এসব বাজারে প্রতিনিদন দূর-দূরান্ত থেকে ফুল কিনতে পাইকার ও খুচরা ব্যবসায়ীরা ভিড় জমাতেন।ফুলচাষি আর ব্যাপরীর হাকডাকে মুখরিত থাকতো এসব এলাকা।তবে করোনার কারণে সে দৃশ্য পাল্টে গেছে।এসব স্থানে এখন আর কাউকে দেখা যাচ্ছে না। জেলার বড় ফুলের হাট গান্না বাজারও ফুলচাষি আর বিক্রেতার অভাবে খাঁ খাঁ করছে। প্রায় লক্ষ টাকা খরচ করে তিন বিঘা জমিতে গাঁদা আর দুই বিঘা জমিতে রজনীগন্ধা চাষ করেছিলেন কলিগঞ্জ উপজেলার ত্রিলোচনপুর ইউনিয়নের শাহপুর ঘিঘাটি গ্রামের হোসেন আলী। সবে মাত্র ফুল উঠা শুরু হয়েছিল। সপ্তাহে গড় ৩০-৪০ হাজার টাকার ফুল বিক্রিও করছিলেন তিনি। আরও তিন মাস ফুল বিক্রি হতো। কিন্তু লকডাউনে সব বন্ধ হয়ে গেছে। হোসেন আলী জানান, লকডাউনে ফুল বিক্রি করতে না পারায় দুই বিঘা গাঁদা ও এক বিঘা জমির রজনীগন্ধা ফুল তুলে ফেলেছেন।কবে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে তা অনিশ্চিত জেনেই অধিকাংশ জমির ফুল তুলে ফেলেছেন তিনি। দুই বিঘা জমিতে গাঁদা ফুল চাষ করেছিলেন একই এলাকার কৃষক আনোয়ার হোসেন। এক সপ্তাহ ধরে বেচাকেনা বন্ধ থাকায় জমিতেই নষ্ট হচ্ছে ফুল। এদিকে ফুল তুললে গাছ মরে যাচ্ছে। গাছ থেকে একবার ফুল তুলতে প্রায় চার হাজার টাকা খরচ হয়। পকেটের টাকা খরচ করে এভাবে ফুলগাছ বাঁচিয়ে রাখা সম্ভব নয়। তাই বাধ্য হয়ে ফুল গাছ তুলে ফেলতে হচ্ছে। জেলা কৃষি অফিস সূত্র জানায়, এবছর ঝিনাইদহের ছয় উপজেলায় ১৭৩ হেক্টর জমিতে ফুলের চাষ হয়েছিল। এরমধ্যে গাঁদা ১১৩ ও রজনী ২৪ হেক্টর, বাকি জমিতে অন্যান্য ফুল চাষ হয়েছে। গেল বছর এ জেলায় চাষ হয়েছিল ২৪৫ হেক্টর। প্রতিবছর সব থেকে বেশি ফুলের চাষ হয় সদর উপজেলার গান্না ও কালীগঞ্জ উপজেলার ত্রিলোচনপুর ইউনিয়নে। গত বছরের মার্চে দেশে করোনা সংক্রমণ শুরুর পর অঘোষিত লকডাউন শুরু হয়। ফলে ফুল বিক্রিতে ধ্বস নামে।এতে ফুলচাষিদের ব্যাপক লোকসান হয়।বিক্রি করতে না পারায় ফুলক্ষেত গরু ছাগল দিয়ে খাইয়েছিল।করোনার প্রভাব কিছুটা কমার পর চাষিরা নতুন করে ফুল চাষ শুরু করে। সেই ক্ষতি পুষিয়ে উঠার স্বপ্নে সবেমাত্র ফুল বিক্রি শুরু হয়।কিন্তু এবারো সেই স্বপ্ন দুঃস্বপ্নে পরিণত হয়েছে।




সর্বশেষ সংবাদ

পুরোন সংবাদ খুজুন
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  

সর্বাধিক পঠিত

প্রকাশক: সৈয়দ এমরান আলী রিপন

সম্পাদক: রোমান চৌধুরী

মোবাইলঃ ০১৭১১৯৫৭২৬৩ / 09639298200

অফিস : সৈয়দ মহল, জানুকি সিং রোড,কাউনিয়া,বরিশাল

ই-মেইলঃ barisalpress247@gmail.com

Design & Developed by
  মোংলা বন্দরে পৌঁছেছে মেট্রোরেলের দ্বিতীয় চালান   নওগাঁর আত্রাইয়ে উপজেলা প্রশাসন ও মহিলা বিষয়ক দপ্তরের আয়োজনে বিশ্ব মা দিবস পালিত   হিলি স্থলবন্দরে ভারতীয় ফেব্রিক্স জব্দ   এতিম ছাত্রদের নিয়ে বরিশাল বিভাগীয় অনলাইন সম্পাদক-প্রকাশক পরিষদের ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত   তামাক পণ্যে সুনির্দিষ্ট কর আরোপের দাবি   স্বাস্থ্যবিধি অমান্য করায় উত্তরার রাজউক কমার্শিয়াল কমপ্লেক্স বন্ধ করে দিলেন মেয়র   দ্বিতীয় পর্বের ৬ হাজার ৯৮৮ জন বীর মুক্তিযোদ্ধাদের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ   নিজ নিজ অবস্থানে থেকে ঈদ করুন : প্রধানমন্ত্রী   যতদিন বাচঁবো জনগনের সেবা করে যাবো —-এমপি মুকুল   অবৈধ দখলের উচ্ছেদ নোটিশকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে প্রতিরোধ কমিটি গঠন   ঈদের নতুন পোশাক পেয়ে খুশি হিলি বালুচর বস্তির অসহায় শিশুরা   রাজশাহী বিভাগে করোনায় ৫০০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৩২ হাজার   শ্রীপুরে বিএনপির নেতা মমতাজ উদ্দিনের মৃত্যুতে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের শোক জ্ঞাপন   রাঙ্গাবালীতে চারটি ধানকাটার মেশিন বিতরণ।   করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৫৬, নতুন আক্রান্ত ১,৩৮৬   রেলের কোটি টাকা আত্মসাৎ   আজ বিশ্ব মা দিবস   দেশের সব ফেরিঘাটে মোতায়েন করা হয়েছে বিজিবি   আজ পবিত্র শবেকদর   করোনায় বাল্যবিবাহ বৃদ্ধি পেয়েছে ২৬ শতাংশ
error: কপি করা থেকে বিরত থাকুন !!